বিশুদ্ধ পানীয় জলের অভাব জানিয়ে সংবাদপত্রে পত্র 

বিশুদ্ধ পানীয় জলের অভাব জানিয়ে সংবাদপত্রে পত্র

বরাবর

সম্পাদক

‘দৈনিক প্রথম আলো’,

ঢাকা-১২১৫।

বিষয়ঃ সংযুক্ত পত্রটি প্রকাশের জন্য আবেদন।

জনাব, আপনার বহুল প্রচারিত স্বনামধণ্য ‘দৈনিক প্রথম আলো’ পত্রিকায় নিম্ন লিখিত পত্রটি চিঠিপত্র কলামে জনস্বার্থে প্রকাশের ব্যবস্থ্য নিতে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণে সহায়তা করলে কৃতার্থ হব। নিবেদক গাজী শরীফ

বিশুদ্ধ পানীয় জল চাই

লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ থানার অন্তর্গত দাসপাড়া একটি জনবহুল গ্রাম। এ গ্রামে প্রায় আট হাজার লোক বাস করে। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় এই যে, এ গ্রামে বিশুদ্ধ পানীয় জলের তীব্র সংকট দীর্ঘদিন ধরে বিরাজ করছে। গ্রামের সব কটি নলকূপের পানি আর্সেনিকযুক্ত। দীর্ঘদিন ধরে মাত্রাতিরিক্ত আর্সেনিকযুক্ত পানি পানের ফলে এ এলাকার বহু লোক আর্সেনিকজনিত সমস্যার সম্মুখীন । এ পানি পান করে অনেকের শরীরে বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দিয়েছে। কারও হাত-পায়ের তালুতে এক রকমের গুটি হয়ে অসহ্য ব্যথার সৃষ্টি করছে। কারো শরীরের চামড়া ফেটে সৃষ্টি করছে অসহনীয় যন্ত্রনার । পেট ব্যথা, কাশি, চোখের মণি ছোট হয়ে পানি ঝরা ইত্যাদি রোগে আক্রান্ত হয়েছে কেউ কেউ। লিভার, কিডনি, ফুসফুস ইত্যাদিতে আক্রান্ত হয়েছে অনেকে। অবশ্য সরকার ইতোমধ্যে নলকূপগুলো পরীক্ষা করে আর্সেনিকযুক্ত নলকূপগুলোকে লাল রং নিয়ে চিহ্নিত করেছে। কিন্তু দুঃখের বিষয়, বিশূদ্ধ পানির বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় সকলকে বাধ্য হয়ে ঐ দূষিত পানিই ব্যবহার করতে হচ্ছে। গ্রামে দুই-চারটি মজা পুকুর আছে, যেগুলো আবর্জনা ও জঞ্জালে পূর্ণ। গ্রামের নিকটস্থ খালের পানিতে একই সাথে গোসল করছে মানুষ ও গবাদি পশু। ফলে গ্রামবাসীর জন্য কলেরা, টাইফয়েড, আমাশয় ইত্যাদি রোগ নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। ব্যাপারটি কয়েকবার কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করেও কোনো ফল পায়নি। এমতাবস্থায় অবিলম্বে এলাকায় আর্সেনিকমুক্ত পানীয় জলের সরবরাহ নিশ্চিত করে এলাকাবাসীকে আর্সেনিকের ভয়াবহতা থেকে বাঁচানোর জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। নিবেদক

গাজী শরীফ

রামগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর।

Suggestion or Complain

সংবাদ শিরোনাম